সোমবার- ১৭ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

প্রচ্ছদ /

টাকার জন্য জীবনে অনেক কিছুই করেছি : সানি লিওন

টাকার জন্য জীবনে অনেক কিছুই করেছি : সানি লিওন
print news

টাকার জন্য জীবনে অনেক কিছুই করেছেন বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন। অভিনয়ের বাইরেও তিনি আরও একটি পরিচয়ের জন্য আলোচিত।

সম্প্রতি ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নিজের ক্যারিয়ার ও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বলেছেন এই তারকা। যেখানে অভিনেত্রী জানিয়েছেন, অভিনয়ের চেয়েও কোনো অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করতে বেশি পছন্দ করেন তিনি।

সানি লিওন বলেন, খুব অল্প বয়স থেকে একাধিক ব্যবসায় বিনিয়োগ শুরু করেছিলাম। মাত্র ১৮ বছর বয়স থেকেই সেসবের শুরু। অর্থ উপার্জনের জন্য অনেক কিছুই করেছি। এসবই আমার জীবনের অংশ।

অভিনেত্রীর ভাষায়, কাজকে ভালোবাসি আমি। নতুন কিছুর প্রতি ঝোঁকও বেশি। আমার কাছে তারকা হওয়াটা কখনোই অগ্রাধিকার পায় না। বরং অভিনয়ের জন্য কোনো অনুষ্ঠান সঞ্চালনার দায়িত্ব বেশি উপভোগ করি।

একসময়ের নীল সিনেমার জগতের এই তারকা বর্তমানে বলিউডে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। পাশাপাশি ওটিটি প্লার্টফর্মেও কাজ করছেন। ক্যারিয়ার, অভিনয়কে সামলে নিজের পরিবার নিয়েও ব্যস্ত থাকেন সানি।

২০১১ সালে ড্যানিয়েলকে বিয়ের পর বর্তমানে তিন সন্তানের বাবা-মা এই দম্পতি। এর মধ্যে একটি মেয়ে দত্তক নিয়েছেন, বাকি দুই পুত্র সন্তানের জন্ম হয়েছে সারোগেসির মাধ্যমে।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে পূজা ভাটের থ্রিলার ‘জিসম ২’-র হাত ধরে বলিউডে পা রাখেন সানি লিওন। এরপর ‘বিগ বস ৫’ এ অংশ নিয়ে আলোচনায় উঠে আসেন তিনি। সবশেষ ২০২৩ সালে অনুরাগ কাশ্যপের ‘কেনেডি’ ছবির হাত ধরে আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে পা রাখেন এই অভিনেত্রী।

ঈশান/মখ/সুপ

আরও পড়ুন

কোকা-কোলার বিজ্ঞাপনটি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে!

সরিয়ে নেওয়া হয়েছে কোকা-কোলার সেই বিজ্ঞাপন!

print news

ফিলিস্তিন-ইসরায়েল যুদ্ধের পর থেকেই মুসলিম বিশ্বে কোনঠাসা হয়ে পড়ে কোমল পানীয় ব্র্যান্ড কোকা-কোলা। বাংলাদেশ একই অবস্থা। বড় একটি অংশ বয়কট করেছে পানীয়টি।

সম্প্রতি এ পানীয়ের একটি বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয়। বিজ্ঞাপনে বলা হয় কোকা-কোলার সঙ্গে ইসরায়েলের কোনো সম্পর্ক নেই। তবে বিষয়টি ভালোভাবে নেননি নেটিজেনরা। তারা রীতিমতো ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। সামাজিক মাধ্যমে শুরু হয় প্রতিবাদ।

অবস্থা বেগতিক দেখে বিজ্ঞাপনটি সরিয়ে নেওয়া হয়েছে কোকা-কোলার ইউটিউব চ্যানেল থেকে। মঙ্গলবার (১১ জুন) দুপুর থেকে কোকা-কোলার ইউটিউব চ্যানেলে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না বিজ্ঞাপনটি। যদিও বিষয়টি নিয়ে এখনও কোকা-কোলা কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি।

তবে ধারণা করা হচ্ছে, সামাজিক মাধ্যমে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিজ্ঞাপন সরিয়ে নিয়েছে কোকা-কোলা কর্তৃপক্ষ। এদিকে কোকা-কোলা বিবৃতি না দিলেও নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেছেন বিজ্ঞাপনটির নির্মাতা শরাফ আহমেদ জীবন এবং অভিনয়শিল্পী শিমুল শর্মা।

জীবন লিখেছেন, ‘এখানে আমি কোথাও ইসরায়েলের পক্ষ নেইনি এবং আমি কখনওই ইসরায়েলের পক্ষে নই। আমার হৃদয় সবসময় ন্যায়ের পক্ষে এবং মানবতার পাশে আছে, থাকবে।’

অন্যদিকে শিমুল ক্ষমা চেয়েছেন। তার কথায়, ‘আমি ভবিষ্যতে কোনো কাজে অভিনয় করতে গেলে অবশ্যই আমাদের দেশের মূল্যবোধ, মানবাধিকার, মানুষের মনোভাবকে যথেষ্ট সম্মান দিয়ে বিবেচনা করে তারপর কাজ করব। আমি মাত্র আমার জীবনের পথচলা শুরু করেছি, আমার এই পথচলায় ভুল ত্রুটি ক্ষমা সুলভ দৃষ্টিতে দেখবেন এবং আমাকে ভবিষ্যতে একজন বিবেকবান শিল্পী হয়ে ওঠার জন্য শুভ কামনায় রাখবেন।’

ঈশান/খম/সুপ

এইডস আক্রান্ত নিয়ে যা বললেন মমতাজ

এইডস আক্রান্ত নিয়ে যা বললেন মমতাজ

print news

য়েকদিন আগে সামাজিক মাধ্যমে গুঞ্জন ছড়ায়, এইডস আক্রান্ত হয়েছেন কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম। বিষয়টি নজরে পড়েছে সাবেক এই সংসদ সদস্যের। বেশ বিব্রত তিনি। সংবাদমাধ্যমের কাছে প্রকাশ করেছেন তা।

মমতাজ বলেন, ‘শুনলাম, আমার নাকি এইডস হয়েছে! বিষয়টি বিব্রতকর। আল্লাহর রহমতে আমি সুস্থ ও খুব ভালো আছি। আর সে কারণেই স্টেজ শো নিয়ে দেশ-বিদেশ ঘুরে বেড়াতে পারছি। ঈদের পরও দেশের বাইরে যাচ্ছি। যারা এসব মিথ্যা কিংবা গুজব ছড়াচ্ছে তাদের সুবুদ্ধির উদয় হোক।

তিনি বলেন, যারা এসব বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে তাদের বলব, এগুলো ভালো না, ভালো পথে থাকেন। আর আমার ভক্তদের বলব, এসব গুজবে কান দেবেন না। সবার দোয়ায় আপনাদের মমতাজ অনেক অনেক ভালো আছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ঈদের পর দিন আবার স্টেজ শোতে অংশ নিতে দুবাই যাচ্ছি। গান গাওয়ার পাশাপাশি সেখানের একটি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানেও অংশ নেব। সব শেষ করে চলতি মাসের ২৩-২৪ তারিখে দেশে ফেরার ইচ্ছা আছে।’

কদিন আগে ‘বুঝলে নাকি বুঝপাতা’ শিরোনামের একটি গান ভাইরাল হয় মমতাজের। এতে তার সঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন গায়িকার নাতনি। গানটি নিয়ে মমতাজ বলেন, ‘মজার ছলেই গানটি কণ্ঠে তোলা। আমার সঙ্গে নাতনি মোমধুও দারুণ গেয়েছে। নাতনিকে নিয়ে তিন-চারদিন আগে ঘুরতে গিয়েই গানটি গাইলাম। তখন এটি ভিডিও করে ফেসবুকে প্রকাশ করি। এটি যে এভাবে মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে তা বুঝিনি।

একটা বার্তাও দিতে চেয়েছি। একদল মানুষ আমার নামে মিথ্যা ও গুজব ছড়াচ্ছে। যাদের বোঝার তারা ঠিকই বিষয়টি বুঝতে পেরেছে। আর কেউ কেউ বিষয়টি নিয়ে এখনও দোটানার মধ্যে আছে। মূলত তাদের উদ্দেশ্যেই গানটি গাওয়া।’

ঈশান/মখ/সুপ

তালগোল পাকিয়ে হারলো বাংলাদেশ

তালগোল পাকিয়ে হারলো বাংলাদেশ

print news

নিউইয়র্কের রহস্যময় উইকেটে বাংলাদেশের বোলাররা নিজেদের কাজটা করে রেখেছিল। লক্ষ্যটাও খুব বেশি ছিল না। তাওহিদ হৃদয় ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটে জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। তবে শেষদিকে তালগোল পাকিয়ে হারলো বাংলাদেশ। 

সোমবার (১০ জুন) নাসাউ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বিশ্বকাপের ‘ডি’ গ্রুপের লো স্কোরিং ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে ৪ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। আগে ব্যাট করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১১৩ রান করে প্রোটিয়ারা। জবাবে ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে শেষ পর্যন্ত ১০৯ রানে থেমেছে টাইগাররা।

রান তাড়ায় নেমে শুরুটা ভালোই ছিল বাংলাদেশের। দ্বিতীয় ওভারে কাগিসো রাবাদার ওপর চড়াও হয়ে টানা দুটি চার হাঁকান তানজিদ তামিম। তবে তার করা অফ স্টাম্পের বাইরের শেষ বলটি তাড়া করতে গিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন তিনি। ৯ বলে ৯ রান করে আউট হন তিনি। এরপর রানের গতি না বাড়লেও দলের বিপদ হতে দেননি নাজমুল হোসেন শান্ত ও লিটন দাস। ৬ ওভার শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ২৯ রান সংগ্রহ করেছিল টাইগাররা।

কিন্তু পাওয়ার প্লে শেষ হতেই বিদায় নেন লিটন দাস। কেশব মহারাজের করা প্রথম বলটি তুলে মারতে গিয়ে কাভারে মিলারের হাতে ধরা পড়েন তিনি। ১৩ বলে ৯ রানে থামে তার ইনিংস। কিছুক্ষণ পর অভিজ্ঞ সাকিব আল হাসানও বিদায় নেন। ৪ বলে ৩ রান করে আনরিখ নরকিয়ার শর্ট বলে ক্যাচ তুলে দেন তিনি।

এরপর ক্রিজে নেমে তাওহিদ হৃদয় ছক্কা হাঁকিয়ে চাপ কমানোর চেষ্টা করলেও উল্টো বাড়িয়ে বিদায় নেন শান্ত। ২৩ বলে ১৪ রান করে তিনি নরকিয়ার শিকার হন। ১০ ওভার শেষে ৫০ রান তুলতে শুরুর ৪ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

এরপর হৃদয় ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ব্যাটে চড়ে এগোচ্ছিল টাইগাররা। পঞ্চম উইকেটে তারা দুজনে মিলে ৪৪ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের পথেই টানছিলেন। তবে ১৮তম ওভারে রাবাদার বলে আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে এলবিডব্লু হয়ে সাজঘরে ফিরে যেতে হয় হৃদয়কে। ৩৪ বলে ৩৭ রান করেন ডানহাতি এই ব্যাটার৷ শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১১ রানের সমীকরণ মেলাতে পারেননি রিয়াদ-জাকের আলীরা। ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা হাঁকাতে গিয়ে বাউন্ডারি লাইনে ক্যাচ দিয়ে বসেন রিয়াদ৷ ২৭ বলে ২০ রান করে আউট হন মাহমুদউল্লাহ। আর তাতেই বাংলাদেশের মুখের কাছ থেকে জয় ছিনিয়ে নেয় প্রোটিয়ারা। দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে ২৭ রান খরচায় সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন কেশভ মহারাজ।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নামা দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসে শুরুতেই তাণ্ডব চালান টাইগার দুই পেসার তানজিম হাসান সাকিব ও তাসকিন আহমেদ। দলীয় ২৩ রানের মধ্যে সাজঘরে পাঠান রেজা হেনড্রিক্স (০), কুইন্টন ডি কক (১৮), এইডেন মার্করাম (৪) ও ট্রিস্টান স্টাবস (০)।

সুপার এইটের রাস্তা সুগম করার ম্যাচে বাংলাদেশকে প্রথম সাফল্য এনে দেন তানজিম সাকিব। প্রথম ওভারের শেষ বলে দারুণ এক ডেলিভারিতে রেজা হেনড্রিকসকে (০) এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন তরুণ এই পেসার। নিজের দ্বিতীয় ওভারে দ্বিতীয় সাফল্য পান সাকিব। কঠিন হওয়ার আগেই উইকেটরক্ষক ব্যাটার কুইন্টন ডি ককের স্ট্যাম্প ভেঙে দেন তিনি। ১১ বলে দুই ছক্কায় ১৮ রান করতে পেরেছিলেন তিনি।

এরপর হেনরিখ ক্লাসেনকে যোগ্য সঙ্গী হিসেবে পান মিলার। দুজন প্রথমে ৫৬ বলে পঞ্চাশ রানের জুটি গড়েন। পরে সেটাকে বড় করে পার করেন দলীয় সেঞ্চুরি। তবে ক্লাসেনের ব্যক্তিগত ৪৬ রানে ফেরাতে ৭৯ রানে জুটি ভাঙে। জুটিতে ফাটল ধরান তাসকিন। একটু পরই ক্লাসেনের দেখানো পথে হাটেন মিলার। রিশাদ হোসেনের বলে বোল্ড হন, থামেন ব্যক্তিগত ২৯ রানে। তখন প্রোটিয়াদের দলীয় স্কোর ছিল ১৮.২ ওভারে ১০৬ রান। তবে সেটিকে আর বেশিদূর এগোতে দেননি মুস্তাফিজুর রহমান। শেষ ওভারে মাত্র ৪ রান দিয়েছেন কাটার মাস্টার। তাতেই ১১৩ রানে থেমেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত টাইগারদের আর জয় পাওয়া হয়নি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

দক্ষিণ আফ্রিকা : ২০ ওভারে ১১৩/৬ (হেনরিখ ক্লাসেন ৪৬, ডেভিড মিলার ২৯, কুইন্টন ডি কক ১৮; তানজিম হাসান সাকিব ৩/১৮, তাসকিন আহমেদ ২/১৯, রিশাদ হোসেন ১/৩২)।

বাংলাদেশ : ২০ ওভারে ১০৯/৭ (তাওহিদ হৃদয় ৩৭, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ২০, নাজমুল শান্ত ১৪; কেশব মহারাজ ৩/২৭, কাগিসো রাবাদা ২/১৯, আনরিখ নরকিয়া ২/১৭)।

ফল : দক্ষিণ আফ্রিকা ৪ রানে জয়ী।

ম্যাচসেরা : হেনরিখ ক্লাসেন।

ঈশান/খম/সুম

চট্টগ্রামে সংঘর্ষে অস্ত্র হাতে যুবকের ছবি ভাইরাল, খুঁজছে পুলিশ

চট্টগ্রামে সংঘর্ষে অস্ত্র হাতে যুবকের ছবি ভাইরাল, খুঁজছে পুলিশ

print news

ট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলায় অস্ত্র হাতে এক যুবকের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। সিএনজি অটোরিকশায় চাঁদাবাজির নিয়ন্ত্রণের আধিপত্য ধরে রাখতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের উপজেলার মনসা বাদামতল এলাকায় দু‘পক্ষের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। এতে গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। এ ঘটনায় অস্ত্র হাতে এক যুবকের ছবি ভাইরাল হয়েছে। বিষয়টি নজরে আসার পর পুলিশ ওই যুবককে খুঁজছে।

সোমবার (১০ জুন) সন্ধ্যায় এমন তথ্য জানিয়েছেন চট্টগ্রামের পটিয়া থানার ওসি জসীম উদ্দিন। তিনি বলেন, সিএনজিচালিত অটোরিকশা থেকে চাঁদাবাজির ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অস্ত্র হাতে থাকা যুবকের ছবি আমার নজরে এসেছে। তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু হয়েছে। আশা করছি, শিগগিরই তাকে আমরা গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হব। তবে এ ঘটনায় সোমবার বিকাল পর্যন্ত কেউ থানায় মামলা করেনি।

স্থানীয়রা আরও জানান, মনসা বাদামতল এলাকায় সিএনজি স্টেশন নিয়ন্ত্রণ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এর জেরে রবিবার বিকালে স্থানীয় সিএনজি সমিতির সভাপতি মো. ফোরকানের সঙ্গে স্থানীয় মহিউদ্দিন ও এরফানের মারধরের ঘটনা ঘটে। ফেরকানকে মারধরের খবর পেয়ে তার গ্রামের স্থানীয় লোকজন ঘটনাস্থল বাদামতল মোড়ে এলে দু‘গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় দুই রাউন্ড ফাঁকা গুলি বর্ষণ ও কয়েকটি বসতঘরে হামলা চালিয়ে জানালার গ্লাস ও টিনের দরজা ভাঙচুর করা হয়। এ সময় অস্ত্র হাতে ভাইরাল হওয়া ছবিটি পটিয়া উপজেলার এনাম নামে এক যুবকের। তার বাড়ি উপজেলার জঙ্গলখাইন গ্রামে বলে জানান স্থানীয়রা।

সূত্রমতে, পটিয়ায় অবৈধভাবে হাজার হাজার সিএনজি অটোরিকশা চলাচল করছে। এসব গাড়ি থেকে টোকেনের মাধ্যমে মাসিক এক হাজার টাকা এবং দৈনিক ২০ টাকা করে চাঁদা আদায় করে নিয়ন্ত্রকরা। এতে প্রতি মাসে বড় অঙ্কের বাণিজ্য হয়। এ চাঁদার টাকার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে প্রায় সময় ঘটছে এ সংঘর্ষের ঘটনা।

স্থানীয় সিএনজি অটোরিকশা সমিতির সভাপতি ফোরকান বলেন, স্থানীয় মহিউদ্দিন সিএনজির চালক বা মালিক না হয়েও দীর্ঘদিন ধরে সমিতি নিয়ন্ত্রণ করে আসছিল। সমিতির নামে প্রত্যেক সিএনজি থেকে দীর্ঘদিন ধরে সে তাহের নামের এক চালককে দিয়ে চাঁদা তুলে আসছিল। এ নিয়ে দু‘পক্ষের মধ্যে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে।  

ঈশান/খম/সুম

প্রেমের টানে শ্রীলঙ্কান তরুণী চট্টগ্রামে

প্রেমের টানে শ্রীলঙ্কান তরুণী চট্টগ্রামে

print news

প্রেমের টানে চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে এসে পড়েছেন পচলা নামের শ্রীলঙ্কান এক তরুণী। বৃহস্পতিবার (৬ জুন) মোরশেদ নামের এক যুবককে বিয়ে করেন পচলা।

শুক্রবার (৭ জুন) রাতে তাদের বিবাহোত্তর অনুষ্ঠান হয়। মোরশেদ ফটিকছড়ি পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মুনাফখিল এলাকার মোহাম্মদ এজাহার মিয়ার ছেলে। তিনি দুবাই প্রবাসী। সেখানে থাকাকালীন গত ২-৩ বছর আগে পচলা নামের এক তরুণীর সঙ্গে পরিচয় হয়। পরিচয়ের পর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং সর্বশেষ তারা বিয়ের পিঁড়িতে বসেন।

বিয়ে উপলক্ষে পচলা এবং তার পরিবার বাংলাদেশে আসেন। শুক্রবার বিয়ের পর নবদম্পতিকে দেখতে ভিড় করেন আত্মীয় স্বজনেরা। তবে গণমাধ্যম এবং স্থানীয়দের কাছে বিদেশি তরুণীর সঙ্গে বিয়ের খবর আড়ালে রাখা হয়।

বর মোরশেদের ছোট ভাই রাকীব বলেন, ভাবির বাড়ি শ্রীলঙ্কা। তাদের দুবাইয়ে পরিচয়। বিয়ের জন্য ভাবির পরিবারও বাংলাদেশে এসেছে। এ দম্পতির বিয়ের কাবিন ধরা হয়েছে ১ লাখ ১ টাকা।

ঈশান/মখ/সুপ

বাঘ-সিংহের লড়াই শুরু হচ্ছে শনিবার ভোর সাড়ে ৬টায়

বাঘ-সিংহের লড়াই শুরু হচ্ছে শনিবার ভোর সাড়ে ৬টায়

print news

বিশ্বকাপ টি-টুয়েন্টি ক্রিকেটে বাঘ-সিংহের লড়াই দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেটপ্রেমীরা। বাঘ হচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রতীক, আর সিংহ হচ্ছে লঙ্কান ক্রিকেটের প্রতীক। ‘ডি’ গ্রুপে যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসে গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোর সাড়ে ৬টায় শুরু হচ্ছে এই খেলা। যার মধ্য দিয়ে শুরু হবে টাইগারদের বিশ্বকাপ মিশন।

‘ডি’ গ্রুপে বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি দু‘দলের জন্যই অনেকটা ফাইনালের মর্যাদায় উন্নীত। যে হারবে তাদের জন্য শেষ আটে জায়গা পাওয়াটা হয়ে উঠবে ভীষণ কঠিন। কেননা ৫ দলের গ্রুপ থেকে দুটি দল সুযোগ পাবে শেষ আটে খেলার। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে হেরে এরই মধ্যে ব্যাকপুটে লঙ্কানরা।

এদিকে লঙ্কান চ্যালেঞ্জে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। এ গ্রুপে দক্ষিণ আফ্রিকা ফেভারিট। ‍দ্বিতীয় দল হিসেবে ‍পরবর্তী রাউন্ডের দাবিদার বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কা। আর তাই এই দুই দলের যে হারবে তাদের জন্য গ্রুপ পর্ব উতরানো হয়ে পড়বে ভীষণই কঠিন।

গত বেশ কিছুদিন ধরেই বাংলাদেশের শক্তির জায়গা পেস বোলিং। বেশিরভাগ ম্যাচেই ‍ব্যাটিং ব্যর্থতা ঢেকে দিচ্ছেন টাইগার বোলাররা, বিশেষ করে পেস স্কোয়াড। ‍কিন্তু বিশ্বকাপের আগে হঠাৎ করেই টাইগার পেস স্কোয়াডে লেগেছে বড় ধাক্কা। প্রথমে ইনজুরিতে পড়েন স্পিড স্টার তাসকিন আহমেদ। সবে শেষ হওয়া যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে সিরিজে অংশ নিতে পারেননি তিনি।

তবে আপাতত সুসংবাদ যে, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে খেলার মতো ফিটনেস ফিরে পেয়েছেন তাসকিন। ‍তবে এই সুসংবাদের মাঝে দুঃসংবাদ হয়ে এসেছে ‍দলের নিয়মিত পেসার শরিফুল ইসলামের ইনজুরি। প্রথম ম্যাচে খেলতে পারছেন না ‍এই বাঁহাতি পেসার। শরিফুলের না থাকাটা একটা ধাক্কা বলেও জানিয়েছেন তাসকিন। তবে বাংলাদেশ পেস স্কোয়াডে বিকল্পের অভাব নেই। তাসকিনকে সঙ্গ দেওয়ার জন্য আছেন সদ্য আইপিএল মাতানো কাটার মাস্টারখ্যাত মুস্তাফিজুর রহমান, তানজিম হাসান সাকিবরা।

লঙ্কান দল মোটামুটি স্পিননির্ভর হলেও পেস শক্তিতেও তারা কম যায় না। নুয়ান তুশারা, দাসুন শানাকা ও মাথিশা পাতিরানা বিপক্ষ শিবিরকে পরীক্ষা নেওয়ার সামর্থ্য ভালোই রাখেন। সবে শেষ হওয়া আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে মুস্তাফিজের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বিপক্ষ দলকে ঘায়েল করেছেন পাথিরানা।

বিশ্বকাপের মঞ্চে ফিজ-পাথিরানা আবির্ভূত হবেন একে অন্যের ঘাতক হিসেবে। দুই সাবেক অধিনায়ক অলরাউন্ডার ম্যাথুজ ও সাকিবের ডুয়েল এই ম্যাচের আরেক আকর্ষণ। টাইমড আউট বিতর্কের কেন্দ্রীয় চরিত্র যে এই দুজনই। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচকে ঘিরে একটা আগুনে লড়াইয়ের সব উপাদানই আছে মজুদ। কে কাকে পোড়ায় সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক সময়টা ভালো যাচ্ছে না দু‘দলের। অফফর্মে থেকেই বিশ্বকাপ অভিযাত্রায় এই দুই দল। প্রস্তুতিমূলক সিরিজে বাংলাদেশ ২-১ ব্যবধানে হেরেছে ক্রিকেটে নামগোত্রহীন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে। প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কা হেরেছে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে। সেই দুঃস্বপ্ন থেকে এখনও বেরিয়ে আসতে পারেনি লঙ্কানরা।

চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে অসহায়ভাবে আত্মসমর্পণ করেছে শ্রীলঙ্কা। ম্যাচে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ৭৭ রানে অলআউট হয়েছে তারা। ম্যাচ শেষে উইকেটকে দায়ী করেছে লঙ্কান অধিনায়ক ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। গত বেশ কিছুদিন ধরেই ব্যাটিংয়ে ভুগছে দলটি। একই সমস্যায় আছে বাংলাদেশও। টপ অর্ডারে রানের দেখা পাচ্ছে না ‍বাংলাদেশ।

লিটন দাস, সৌম্য সরকার, নাজমুল হোসেন শান্তরা কেউই পারছেন না নামের প্রতি সুবিচার করতে। তরুণদের মধ্যে তানজিদ হাসান তামিম, তাওহিদ হৃদয়রা মাঝেমধ্যে ঝলক দেখালেও সেভাবে ধারাবাহিক নন। দুই অভিজ্ঞ সেনানী মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও সাকিবের ওপর দল অনেকাংশেই নির্ভরশীল। গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে মাত্র ৬৫ বলের ঝড়ো ইনিংসে ৮২ রান করে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় বড় ভূমিকা রেখেছিলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

এবারে বড় মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে সাকিব। টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারিও তিনি। ৩৬ ম্যাচে তার শিকার ৪৫ উইকেট। এই ফরম্যাটের বিশ্বকাপে সবার আগে উইকেটের হাফসেঞ্চুরির হাতছানি সাকিবের সামনে।

ঈশান/খম/সুপ

রেলের কোটি টাকা আত্মসাত মামলা তদন্তভার পেল সিআইডি

রেলের কোটি টাকা আত্মসাত মামলা তদন্তভার পেল সিআইডি

print news

রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল চট্টগ্রামে ভুয়া বিল-ভাউচারে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনায় রেলের অস্থায়ী এক পিয়নসহ তিন জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে চট্টগ্রাম চিফ মেট্রোপলিটন আদালতে।

চট্টগ্রাম রেলের অর্থ ও হিসাব শাখার হিসাব কর্মকর্তা সোহাগ মীর (৩৭)। গত ৩ এপ্রিল আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। গত ৫ জুন মঙ্গলবার এই মামলার তদন্ত রিপোর্ট দেওয়ার কথা থাকলে তা দেওয়া হয়নি। আদালত মামলার তদন্তভার দিয়েছে সিআইডির হাতে। সিআইডি পুলিশ পরিদর্শক আবদুল করিম এ তথ্য নিশ্চিত নিশ্চিত করেছেন।

মামলার আসামিরা হলেন রেলের অস্থায়ী পিয়ন হাবিব উল্লাহ খাঁন (৩৫), মো. সোহাগ (৩৫) ও কহিনুর আকতার (৩০)। কহিনুর আকতারের নামে আগ্রাবাদ শাখার সীমান্ত ব্যাংকে অ্যাকাউন্টে ওই বিলের টাকা লেনদেন হয়।

মামলায় উল্লেখ করা হয়, আসামি হাবিব উল্লাহ খাঁন রেলের অর্থ ও হিসাব শাখার অস্থায়ী পিয়ন পদে ২০১৫ সালে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পান। পিয়ন হলেও আইবাস প্লাস প্লাসের আইডির গোপন পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে দীর্ঘদিন বিল এন্ট্রি দিতেন হাবিব। তিনি কম্পিউটার সিস্টেম ব্যবহার করে সম্পূর্ণ বিল প্রস্তুত করতেন।

আরেক আসামি মো. সোহাগ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘দ্যা কসমোপলিটন কর্পোরেশন’র নাম ব্যবহার করে, কোনো ধরনের অথরাইজেশন ছাড়াই প্রতিষ্ঠানের ভুয়া প্রতিনিধি সেজে, সিন্ডিকেট সহযোগিতায় অবৈধভাবে জালিয়াতির মাধ্যমে রেলওয়ে থেকে চেক সংগ্রহ করেন।

এরপর অপর আসামি কহিনুর আকতারের সঙ্গে যোগসাজশে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহার করে ভুয়া ঠিকানায় ট্রেড লাইসেন্স করে। একইসঙ্গে ওই নারী চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ শাখার সীমান্ত ব্যাংকে নতুন হিসাব খুলেন। পরে তিন জনের যোগসাজশে জালিয়াতি ও ভুয়া ভাউচারে ৯৬ লাখ ৯০ হাজার টাকার ঠিকাদারি বিল আত্মসাৎ করেন।

‘দ্যা কসমোপলিটন কর্পোরেশন’র স্বত্বাধিকারী নাবিল আহসান বলেন, কাজের প্রকৃত বিলটি নকল করে ভুয়া ডকুমেন্টস তৈরির পর চেক গ্রহণ ও টাকা উত্তোলন করা হয়। বিষয়টি আমিই প্রথমে রেলের হিসাব বিভাগ কর্তৃপক্ষের নজরে এনেছি।’

মামলার বাদি রেলের অর্থ ও হিসাব বিভাগের কর্মকর্তা সোহাগ মীর বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

এর আগে ঘটনার বিষয়টি জানাজানি হলে গত ১১ ফেব্রুয়ারি হিসাব কর্মকর্তা মামুন হোসেন, হিসাবরক্ষক শিমুল বেগম, অডিটর (ডিএফএ) পবন কুমার পালিত, হিসাব কর্মকর্তা (প্রশাসন) মো. আবু নাছের, হিসাবরক্ষক (প্রশাসন ও সংস্থাপন) সৈয়দ সাইফুর রহমান, জুনিয়র অডিটর ইকবাল মো. রেজাউল করিম এবং অফিস সহায়ক মাকসুদুর রহমানকে সাময়িক বহিষ্কার করে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

ঈশান/খম/সুম

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের লকার থেকে দুই পরীক্ষার্থীর মার্কশিট উধাও

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের লকার থেকে দুই পরীক্ষার্থীর মার্কশিট উধাও

print news

ট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড থেকে গায়েব হয়ে গেছে ২০২৩ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীর দুটি মার্কশিট। তবে মার্কশিটগুলো কোন পরীক্ষার্থীর তা জানা যায়নি।

সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, তদন্তে ফলাফল জালিয়াতির বিষয়টি ধামাচাপা দিতে আগেভাগে এ ঘটনা ঘটেছে। গত ৩ জুন মাউশি গঠিত তদন্ত কমিটি তদন্ত কার্যক্রম শুরু করে।

মার্কশিট গায়েবের ঘটনায় মঙ্গলবার (৪ জুন) থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। নগরীর পাঁচলাইশ থানায় এই জিডি করেন বোর্ডের উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ দিদারুল আলম।

জিডিতে ওই কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, ‘আমার অফিস কক্ষে তিনটি লকারে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা-২০২৩ এর শিক্ষার্থীদের লক্ষাধিক নম্বরফর্দ রক্ষিত ছিল। গত ১৯ মে সকাল ১০টার দিকে দেখা যায় যে, ওই তিনটি লকারের মধ্যে একটি লকারে লাগানো তালা নেই।

বিষয়টি আমি তাৎক্ষণিক চেয়ারম্যান মহোদয়কে লিখিতভাবে অবহিত করি। পরবর্তীতে ৩ জুন বিকেল তিনটার সময় লকারটি তদন্ত কমিটির নির্দেশক্রমে শিক্ষাবোর্ডের দু‘জন কর্মকর্তার উপস্থিতিতে পর্যালোচনা করে দেখা যায়, লকারে শুধুমাত্র দু‘জন শিক্ষার্থীর দুটি নম্বরফর্দ নেই। তবে এই নম্বরফর্দ দুটি কোন দু‘জন শিক্ষার্থীর তা জিডিতে উল্লেখ নেই।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ণ চন্দ্র নাথের ছেলে নক্ষত্র দেবনাথ ২০২৩ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। কেবল বাংলা ছাড়া তিনি সব বিষয়ে জিপিএ-৫ পায়। কিন্তু চতুর্থ বিষয়ে জিপিএ-৫ পাওয়ায় সামগ্রিক ফলাফলে জিপিএ-৫ পেয়েছিল। বাংলায় জিপিএ-৫ না পাওয়ায় তার পরিবারের পক্ষ থেকে পুনর্নিরীক্ষণের আবেদন করতে যায়।

আবেদন করতে গিয়ে দেখে কে বা কারা আগে থেকে সব বিষয়ের জন্য আবেদন করে রেখেছেন। এ ঘটনায় ছেলের পক্ষে তার মা বনশ্রী নাথ পাঁচলাইশ থানায় গত ৪ ডিসেম্বর ২০২৩ তারিখে জিডি করেন। সেই জিডিতে পুনর্নিরীক্ষণের জন্য আবেদন করেছেন, তা বের করার আবেদন জানানো হয়।

চট্টগ্রামের মুক্তিযোদ্ধাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ সংক্রান্ত অনিয়মসহ নানা অভিযোগ তদন্তে উল্লিখিত কমিটি করা হয়। কমিটি হওয়ার পর অনিয়মের আলামতগুলো সরিয়ে ফেলতে সহায়তার জন্য এলপিআরে থাকা সাবেক সিনিয়র সিস্টেম এনালিস্ট কিবরিয়া মাসুদকে গত ১৫ এপ্রিল থেকে দৈনিক ২ হাজার টাকা মজুরিতে আবার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ২০২১ সালে ফলাফল কেলেঙ্কারিতে কিবরিয়া মাসুদের শাস্তি হয়।

অডিও ফাঁস ও কিবরিয়া মাসুদকে দায়িত্ব আনার বিষয়টি নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা প্রফেসর ইদ্রিস আলী জানান, জালিয়াতির আলামত নষ্ট করার উদ্দেশ্যে কিবরিয়া মাসুদকে আবার ফলাফল প্রস্তুতের মতো স্পর্শকাতর শাখায় আনা হয়েছে। অডিও ফাঁস হওয়ার পর বিষয়টি দিনের মতো স্পষ্ট হয়ে গেছে।

তবে অডিও ফাঁসের বিষয়ে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মুজিবুর রহমান ও প্রোগ্রামার আবদুল মালেকের সঙ্গে কথা বললে তাঁরা জানান, উল্লিখিত ধরনের অডিওটি আবদুর রহমানের কাছ থেকে জোর করে চাপ দিয়ে নেওয়া হয়েছে। অডিওতে উল্লিখিত ঘটনা সঠিক নয়।

ঈশান/খম/সুপ

আলোচিত ঋণখেলাপি জসিম বেনজীরের ব্যবসায়ীক পার্টনার!

আলোচিত ঋণখেলাপি জসিম উদ্দিন বেনজীরের ব্যবসায়ীক পার্টনার!

print news

‘‘ওনি বেনজীরের লোক, বেনজীর স্যারের সঙ্গে ওনার ব্যবসা। আপনি ওনার সঙ্গে পারবেন না। বড় অংকের টাকা ধরে বসে যান।’— বারবার আমাকে এমন প্রস্তাব দিয়েছেন খোদ চন্দনাইশ থানার ওসি।’’

ণখেলাপি ব্যবসায়ী’ জসিম উদ্দীন সাম্প্রতিক আলোচিত পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজি) বেনজীর আহমেদের ব্যবসায়ীক পার্টনার ও ঘনিষ্ট সহযোগী! এ সুবাধে আদালতের সাজা পরোয়ানা মাথায় নিয়ে ‘পুলিশ প্রটোকলে’ চালিয়েছেন নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। ঋণখেলাপিতে দণ্ডিত হওয়ার পরও প্রার্থিতা বাতিল করেননি রিটার্নিং অফিসার। পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনকে ‘বশীভূত’ করে ভোটের মাঠে ‘খাটিয়েছেন’ প্রভাব।

এছাড়া আচরণবিধি লঙ্ঘন, কর্মী-সমর্থকের ওপর হামলা, এজেন্টদের কাছ থেকে জোর করে সই নেওয়াসহ এমন নানা অভিযোগের ফিরিস্তি নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দ্বারস্থ হয়েছেন প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী ও চন্দনাইশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু আহমেদ জুনু।

তিনি এসব কারণে চন্দনাইশে উপজেলা নির্বাচনের বেসরকারি ফলাফল বাতিল করে গেজেট প্রকাশ স্থগিত করার দাবি জানিয়েছেন। গত ১ জুন (শনিবার) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) বরাবর এ অভিযোগলিপি পাঠান আবু আহমেদ জুনু। সোমবার (৩ জুন) বিষয়টি প্রকাশ পেয়েছে।

অভিযোগে তিনি বলেছেন, ‘মোটর সাইকেল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ব্যবসায়ী জসিম উদ্দীন একজন ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপি। পুলিশের প্রাক্তন আইজি বেনজীর আহমেদের ঘনিষ্ঠ সহযোগী। একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অংশীদার। গত ৪ এপ্রিল তাকে ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপি ঘোষণা দিয়ে জসিম উদ্দীনের বিদেশ গমনে নিষেধাজ্ঞা দেন অর্থঋণ আদালত। ৩০ এপ্রিল ৫ মাসের আটকাদেশও দেন। তাঁকে বাঁচাতে নিয়মবহির্ভূত আবেদন করায় পদ্মা ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টরকেও শোকজ করেন আদালত।

পরে ৩০ এপ্রিল অনলাইনে মনোনয়নপত্র দাখিল করে হলফনামা সংযুক্ত করেন জসিম। যেখানে খেলাপি ঋণের বিষয়টি গোপন করা হয়। অথচ তাঁর বিরুদ্ধে খেলাপি ঋণ উদ্ধারের জন্য অর্থঋণ আদালতে মামলা দায়ের করে পদ্মা ব্যাংক। ওই মামলায় তাঁর সাজাও হয়েছে। হলফানামার তথ্য গোপনের বিষয়টি উল্লেখ করে আপীল কর্তৃপক্ষ বরাবর অভিযোগও দেয় পদ্মা ব্যাংক। আপিল না মঞ্জুরের পর ভোটের দুদিন আগে ২৭ মে আবারো পুনরায় আবেদন করা হয়। এছাড়া ১৯ মে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর অভিযোগও দায়ের করে।’

অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়, ‘ভোটের আগে প্রার্থী জসিম উদ্দিন আহমেদ রাস্তা বন্ধ করে সভা সমাবেশ করায়, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে হত্যার হুমকি, প্রকাশ্যে নির্বাচনী প্রচারকার্য চালানো, নগদ অর্থ বিতরণ, ডিজিটাল ব্যানার ও ডাবল মাইক ব্যবহারসহ ৭টি অনিয়মের বিষয়ে রিটার্নিং অফিসার বরাবর অভিযোগ জানানো হয়। এরপরও রিটার্নিং অফিসার কোনো ব্যবস্থা নেননি। সাজামূলে তাঁর গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকলেও পুলিশ প্রশাসন তাকে গ্রেপ্তার না করে পুলিশ প্রটেকশনে নির্বাচনী কার্য করার সুযোগ করে দিয়েছেন।

অথচ এখনো গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আদালত থেকে রিকল করা হয়নি। এছাড়া ভোটের দিন জসিম উদ্দীন আহমদ পুলিশ ও সিভিল প্রশাসনকে বশীভূত করে ৯টি ভোটকেন্দ্রে এজেন্টদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে রুমের ভেতর তালাবদ্ধ করে রাখে। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর কর্মীদের ব্যালট পেপারে সিল মারার দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করলে পুলিশ তাঁর মোবাইল কেড়ে নিয়ে ছবিগুলো ডিলিট করে ছেড়ে দেয়। পরে জসিম উদ্দীনের কর্মীরা তাঁর কর্মী সমর্থকদের মারধর করেন।’

এসব অভিযোগে রিটার্নিং অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের পাঠানো বেসরকারি ফলাফল বাতিল করে গেজেট প্রকাশ কার্যক্রম স্থগিতের আর্জি জানান আবু আহমেদ জুনু।

এদিকে পদ্মা ব্যাংক হেড অফিসের একটি চিঠিতে জানা গেছে, ভোটের দুদিন আগে অর্থাৎ ২৭ মে যেখানে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবরে ‘ঋণখেলাপি’ জসিম উদ্দীনের প্রার্থিতা বাতিলের আবেদন জানিয়েছিল ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। পদ্মা ব্যাংকের এসইভিপি ফিরোজ আলম স্বাক্ষরিত ওই পত্রে জানানো হয়েছে, জসিম উদ্দীন চৌধুরী উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হয়ে সিআইবি রিপোর্টে ঋণখেলাপি না দেখানোর যে ৩ মাসের স্থগিতাদেশ আনেন তা ব্যাংক কর্তৃপক্ষের আপিলে ৮ সপ্তাহের জন্য স্থগিত করা হয়। বিষয়টি বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো সিআইবি বরাবর পত্র পাঠিয়ে অবহিত করা হয়। ওই পত্রে ঋণখেলাপি হওয়ায় জসিম উদ্দীনের প্রার্থিতা বাতিলের আবেদন জানিয়েছিল পদ্মা ব্যাংক।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর অভিযোগ করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আবু আহমেদ চৌধুরী জুনু। তিনি বলেন, ‘‘ওনি বেনজীরের লোক, বেনজীর স্যারের সঙ্গে ওনার ব্যবসা। আপনি ওনার সঙ্গে পারবেন না। বড় অংকের টাকা ধরে বসে যান।’— বারবার আমাকে এমন প্রস্তাব দিয়েছেন খোদ চন্দনাইশ থানার ওসি। আমি ছাত্রজীবন থেকে সংগঠন করে আসা লোক। তাই ওনার এ প্রস্তাবে আমি সায় দিইনি।’’

তিনি আরো বলেন, ‘প্রচার-প্রচারণা থেকে শুরু করে ভোটের দিন পর্যন্ত আমাকে নানাভাবে হয়রানি করা হয়েছে। পুলিশ, প্রশাসন, নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা সবাই মিলে এমন বৈষম্যমূলক আচরণ করেছেন মনে হয়েছে আমি কেউই না! রাতের আঁধারে আমার সমর্থকদের ঘরে ঘরে গিয়ে ডিবির লোক পরিচয় দিয়ে তুলে নিয়ে সাজানো মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। বড় বড় কেন্দ্রগুলো দখলের পরও প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।’

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে চন্দনাইশ থানার ওসি ওবায়েদুল হক বলেন, ‘ওনি বললেই কি হলো? এ ধরনের কোনো কথা আমি ওনাকে বলিনি।’

এদিকে এসব অভিযোগ প্রসঙ্গে কথা বলতে বেসরকারিভাবে বিজয়ী চন্দনাইশ উপজেলা চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন আহমেদের সঙ্গে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হয় সোমবার বিকেলে। কিন্তু তিনি সাড়া দেননি।

গত ২৯ মে চন্দনাইশ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন জসিম উদ্দিন আহমেদ।

ঈশান/খম/সুম

কোথায় গেলেন রাঙ্গুনিয়ার কলেজছাত্রী জান্নাতুল নাঈম

কোথায় গেলেন রাঙ্গুনিয়ার কলেজছাত্রী জান্নাতুল নাঈম

print news

শ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছেন চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার কলেজছাত্রী জান্নাতুল নাঈম (১৮)। কলেজে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে হারিয়ে গেলেন কোথায় তিনি। তাকে না পেয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে রাঙ্গুনিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে।

রোববার (২ জুন) বিকেলে এ তথ্য জানান নিখোঁজ ছাত্রীর বড়ভাই মো. ইউসুফ। তিনি বলেন, গত ২৩ মে সকাল ৯টার দিকে কলেজে যাওয়ার কথা বলে সে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর আর বাড়িতে ফিরে আসেনি। ওই দিন বিকেলের পর কলেজে খোঁজ নিলে অধ্যক্ষ জানান, ওই দিন সে কলেজেও যায়নি। এরপর তার বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়স্বজন এবং বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তার কোনো সন্ধান মেলেনি।

মো. ইউসুফ আরও বলেন, কোথাও বোনের কোন সন্ধান না পেয়ে গত ২৫ মে রাঙ্গুনিয়া মডেল থানায় জানানো হয় এবং গত ১ জুন সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করি। আমার বোনের ব্যবহৃত মুঠোফোনের কললিস্ট বের করে দুটি নাম্বার থেকে একাধিকবার যোগাযোগের তথ্য পায়।

তাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা তা প্রথমে অস্বীকার করলেও পুলিশের কাছে স্বীকার করে। তারা এলাকাতেই আছে এবং একজন বিদেশ চলে যাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। অন্যদিকে তার ঘনিষ্ট দুই বান্ধবী যারা তার একসাথে কলেজে যেতো তারাও অজ্ঞাত চাপে মুখ বন্ধ রেখেছে এবং বার বার জিজ্ঞেস করলেও কিছু বলছে না। তার সাথে কারো প্রেমের সম্পর্কের খবর আমরা এখন পর্যন্ত পাইনি। তাই এটি নিখোঁজ নাকি পরিকল্পিত অপহরণ তা নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি চন্দন চক্রবর্তী বলেন, ঘটনাটি আমরা তদন্ত করে দেখছি। কলেজছাত্রী জান্নাতুল নাঈমের অবস্থান শনাক্তের চেষ্টা চলছে। আশা করছি তাকে খুব দ্রুত উদ্ধার করা সম্ভব হবে।

পুলিশ সূত্র জানায়, নিখোঁজ কলেজছাত্রী জান্নাতুল নাঈম রাঙ্গুনিয়া উপজেলার লালানগর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড বন্দেরাজার পাড়ার ইউনুস চেয়ারম্যান বাড়ির আব্দুস সামাদের মেয়ে। সে স্থানীয় উত্তর রাঙ্গুনিয়া ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। সে পরিবারের দুই ভাই চার বোনের মধ্যে সবার ছোট।

ঈশান/মখ/সুপম

সম্পর্কিত আরো খবর

জনপ্রিয়

error: Content is protected !!